1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৫:৩৬ আজ বৃহস্পতিবার, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৩শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




টিকটকে মডেলিং ফাঁদে সাঘাটার কিশোরী লতা, পুলিশের দ্রুত পদক্ষেপের পতিতাবৃত্তির কবল থেকে রক্ষা, যৌনকর্মী আটক

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১৪ মে, ২০২২
  • ২৭১ বার দেখা হয়েছে

প্রতিনিধি, গাইবান্ধা:
গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা থানার পদুমশহর গ্রামের কিশোরী লতিফা আক্তার লতা (১৬) টিকটকে মডেলিং করার প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ হওয়ার তিন দিনের মধ্যেই চট্টগ্রামের চান্দগাঁও থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় জড়িত এক মহিলাকে আটকও করা হয়।
জানা যায়, লোকমান হোসেন এর কন্যা লতা স্থানীয় পদুমশহর নতুন বন্দর উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ম শেণিতে পড়ালেখা করে। পাঁচমাস মাস পূর্বে ভোলা জেলার শষিভুষন থানার চরমঙ্গল গ্রামের মজিবুর রহমানের কন্যা নিশা আক্তারের সাথে ফেসবুক পরিচয় সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর বেশিরভাগ সময় নিশা আক্ত লতার সাথে ইমো নাম্বার ব্যবহার করে যোগযোগ করত। কম বয়স ও টিকটক ব্যবহারের সুযোগ নিয়ে নিশা আক্তার লতাকে টিকটকে চাকুরী ও মডেলিং করার কথা চট্রগ্রাম জেলার বিভিন্ন লোকেশনে টিকটক এ্যাপে ভিডিও তৈরির প্রলোভন দেখায়।

নিশা আক্তারের কথার মাঁরপ্যাচে লতা রাজী হয়। গত ৯ মে, ২০২২ তারিখ সকাল ৯টায় লতা প্রাইভেট পড়ার জন্য নতুন স্থানীয় বন্দর স্কুলে যায়। স্কুলে থাকা অবস্থায় নিশা আক্তার লতাকে ফোন করে গাইবান্ধা যেতে বলে। চট্রগ্রাম থেকে নিশা আক্তার গাইবান্ধা বাসস্ট্যান্ডে আসে। লতা গাইবান্ধা গেলে নিশা আক্তার লতাকে নিয়ে ভাড়া বাসে চট্রগ্রাম জেলার চান্দগাঁও থানার শোলশহর এলাকায় গিয়ে উঠে। কৌশলে নিশা আক্তার লতার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি নিয়ে বন্ধ করে দেয়।
পরে লতার পরিবারে লোকজন লতাকে খোঁজাখুজি করে সন্ধান না পেয়ে তার মা সাঘাটা থানায় জিডি করেন। এই জিডির প্রেক্ষিতে বোনারপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ব্যাপক অভিযান ও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে চট্রগ্রাম জেলার চান্দগাঁও থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। অবশেষে ১৩ মে বিকেল ৩ টার সময় নিশা আক্তারের ভাড়া বাসা চট্রগ্রাম জেলার চান্দগাঁও থানার ৬ নং ওয়ার্ডের পূর্ব শোল শহর এলাকার গনি মাবিয়া ম্যানশন এলাকায় অভিযান করে লতাকে উদ্ধার করে। এসময় নিশা আক্তারকে আটক করা হয়। বোনারপাড়া পুলিশ বোনারপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রাকিব হাসান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত নিশা আক্তার পতিতাবৃত্তির সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। এঘনাটার সাথে নিশার বোনসহ একটি চক্র জড়িত থাকতে পারে বলে পুলিশ ধারনা করছে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ