1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ৮:০৫ আজ সোমবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি




মৃত রোগীর নামে ব্যবস্থাপত্র দেয়ার অভিযোগ

  • সংবাদ সময় : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ৬৩ বার দেখা হয়েছে

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ  গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসপাতালে ভাঙচুরের অভিযোগে স্বজনদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তবে স্বজনদের পক্ষ থেকে থানায় মামলা না নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সেই সাথে এ ঘটনায় দেখা দিয়েছে ধূব্রজাল। বিনা চিকিৎসায় রোগী মৃত্যু ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার চেয়ে শুক্রবার (২৩ জুলাই) বিকেলে সদর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের পশ্চিম বাটিকামারী গ্রামের বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নিহতের পুত্রবধূ রিনা আক্তার ।

লিখিত বক্তব্যে রিনা আক্তার উল্লেখ করেন, গত ১৮ জুন দুপুরে তার অসুস্থ শ্বাশুড়ি জাহেদা বেগমকে জেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সে সময় যথারীতি হাসপাতালের ল্যাব বন্ধ থাকায় বাইর থেকে রক্ত পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। রক্ত পরীক্ষা করার পর বিকেলে রিপোর্টসহ রোগীকে আবার হাসপাতালে আনা হয়। পরবর্তীতে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ‘আমার শ্বাশুড়ি অসুস্থ ছিল। তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে গেছি। তারপর ডাক্তার ব্লাড টেস্ট করতে দিছে। ব্লাড টেস্ট করে নিয়ে আসার পর ডাক্তার সুজন পান বলে, আপনার শ্বাশুড়ি সুস্থ আছে; ভাল আছে। আপনারা তাকে বাসায় নিয়ে যান।’ এরপর সুজন পালের দুই ঘণ্টা হাত ধরছি, পাও ধরছি তবুও ভর্তি করাই নাই। তারপর শ্বাশুড়ি বিনা চিকিৎসায় হাসপাতালে মারা গেলে তারা নিজের দোষ ঢাকার জন্য হাসপাতালে ভাঙচুর করে। পরে আমাদেরকে বের করে দিছে।’

রিনা আক্তার আরও বলেন, ‘এখন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উল্টো আমার স্বামীর নামে হাসপাতালে ভাঙচুরের মামলা দিছে। সেখানে বলা হয়েছে, আমরা নাকি মৃত্যু রোগী হাসপাতালে নিয়ে গেছি। তাহলে আমার প্রশ্ন হল, ওনারা তাহলে কাকে দুই মাসের ওষধ লিখে দিল। কাকে রিপোর্ট করতে দিল।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরা মৃত্যুর এই ঘটনায় পর সদর থানায় মামলা করতে গেছিলাম। কিন্তু পুলিশ আমাদের মামলা নেয়নি। আমার স্বামীর নামে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ ঘটনার সঠিক তদন্ত দাবি করছি।

এর আগে, গত ১৮ জুলাই গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাংচুুর ও মারধরের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় রোগীর স্বজন জাহিদুল ইসলাম জাহিদের নাম উল্লেখসহ ৮/৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও,) ডাক্তার হারুন অর রশিদ।

মামলায় বলা হয়, গত ১৮ জুলাই বিকেলে জাহেদা বেগম নামে এক মৃত্যু রোগীকে হাসপাতালে আনা হয়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সুজন পাল রোগীকে মৃত্যু ঘোষণা করলে স্বজনরা চিকিৎসক ও নার্সদের মারধর করে। পরে তারা হাসপাতালে ভাঙচুর চালায়।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ