1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সকাল ৭:০০ আজ মঙ্গলবার, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




একই রঙের গেঞ্জিতে গণধোলাইয়ের শিকার প্রকৌশলী!

  • সংবাদ সময় : রবিবার, ২৭ জুন, ২০২১
  • ৬৪ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট: একই রঙের গেঞ্জির কারণে ময়মনসিংহের ভালুকায় গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন দুলাল (২২) নামে এক প্রকৌশলী।

ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার ভরাডোবা নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। আহত ওই প্রকৌশলীকে প্রথমে ভালুকা হাসপাতাল ও পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত প্রকৌশলী চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার বালিয়া গ্রামের ঝন্টু মিয়ার ছেলে। তিনি ত্রিশাল উপজেলার আকিজ গ্রুপে চাকরি করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভরাডোবা গ্রামের চুমকির মেয়েকে নীল রঙের গেঞ্জি পরা এক যুবক ইভটিজিং করে। সেই রঙের একই কাটিং গেঞ্জি পরা দুলাল মিয়া শনিবার সন্ধ্যায় ভরাডোবা নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কাঠের টেবিল কিনতে আসেন। ওই সময় স্থানীয় ঐশী বিউটি পার্লারের মালিক চুমকি ও তার স্বামী মনির, মা সাহিদা ও ভাই চয়েজসহ স্থানীয় কিছু যুবক প্রকৌশলী দুলালকে বেদম মারপিট করে মাটিতে ফেলে রক্তাক্ত জখম করেন।

পরে স্থানীয় লোকজন দুলালকে উদ্ধার করে প্রথমে ভালুকা সরকারি হাসপাতাল ও পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ভরাডোবা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জসিম উদ্দিন জানান, একই রঙের গেঞ্জির কারণে এ ঘটনাটি ঘটেছে, তবে আহত ছেলেটি নিরীহ।

আহত প্রকৌশলী দুলাল মিয়া জানান, তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত আছেন। ফার্নিচারের দোকানে কাঠের টেবিল কিনতে এসে তিনি আক্রমণের শিকার হন। সুস্থ হওয়ার পর তিনি আইনি ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান।

অভিযুক্ত চুমকির মোবাইলে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে তার ভাই চয়েজ আহমেদ জানান, আমার ১১ বছরের ভাগ্নির সঙ্গে এক ছেলে ইভটিজিং করে। মারধরের ঘটনাটি ভুল বোঝাবুঝির কারণে হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহআলম তরফদার জানান, ঘটনাটি আমি শুনেছি। ইভটিজারকে সঠিকভাবে শনাক্ত না করে মারধর করা ঠিক হয়নি। তাকে আইনের হাতে তুলে দেয়া উচিত ছিল।

ভালুকা মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি ভুল বোঝাবুঝির কারণে হতে পারে। তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ