1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সন্ধ্যা ৭:০৯ আজ সোমবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি




 ধাপেরহাটে ভুমি অধিগ্রহণে প্রকৃত মূল্য না পাওয়ায় জাতীয় মহাসড়কে  মানববন্ধন

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ২৯ মে, ২০২১
  • ১৫১ বার দেখা হয়েছে
সাদুল্লাপুর থেকে লাবলু: গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের জাতীয় মহাসড়ক  চারলেন প্রকল্পে ভুমি অধিগ্রহণের অসামঞ্জস্যে ও শুভংকরের ফাঁকির অভিযোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত।
বেলা ১১ টায় সাদুল্লাপুরে ধাপেরহাটের জাতীয় মহাসড়কের আখ সেন্টারের সামনে বৃষ্টি কে উপেক্ষা করে শত শত নারী পুরুষ অংশগ্রহণ করে।
এসময় উপস্থিত ব্যক্তিরা জানায়, কিছু অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী ও স্হানীয় দালাল চক্র অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থের জন্য জমির প্রকৃত মূল্য জমি মালিকদের না দিয়ে মনগড়া মূল্য  নির্ধারণ করে অবকাঠামতে অধিক টাকা প্রদান করেছে। তারা জমি মালিকদেরকে বঞ্চিত করেছে।
এমন অসামঞ্জস্য পূর্ন মূল্য মেনে নেওয়া কোনভাবেই সম্ভব নয়। তারা এর প্রতিকার চেয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের হস্তক্ষেপ আশা করে।
গত বুধবার জেলার ভূমি অধিগ্রহণের ৮ ধারা নোটিশ জারির পর সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের পালানপাড়া বাসী এ মানববন্ধন করে।
পালানপাড়া মৌজা প্রতি শতাংশ ডাঙ্গা জমি মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ৭১ হাজার টাকা অপরদিকে একই শ্রেণীভুক্ত হাসান পাড়া মৌজায় তা ৬০ লক্ষ টাকা।
ঢাকা টু রংপুর পর্যন্ত জাতীয় মহাসড়কের সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল থেকে  রংপুর পর্যন্ত চলছে মহাসড়ক চারলেন উন্নীত করার কাজ। এর মধ্যে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থেকে সাদুল্লাপুরের  ধাপেরহাট পর্যন্ত ৩২ কিলোমিটার রাস্তার দুধারে চলছে জমি অধিগ্রহণ।
এরি মধ্যে জমি, অবকাঠামো,অন্যান্য ক্ষতি পুরুন বাবদ সাদুল্লাপুর অংশের চারটি গ্রামের  (একবারপুর,চন্ডীপুর, পালানপাড়া, হাসানপাড়া, ও গোবিন্দপুর) একই শ্রেণীভুক্ত জমিতে নির্ধারণ করা হয়েছে ভিন্ন ভিন্ন মূল্য। এতে করে ভুমি অধিগ্রহণের জন্য  মূল্যে নির্ধারনের ক্ষেত্রে গত দুই বছরের প্রকৃত মূল্য  অনুসরন কিংবা পার্শ্ববর্তী জমির প্রকৃত মূল্যে সাথে  সামঞ্জস্য না করেই হাসানপাড়া ছাড়া তিনটি গ্রামের জমির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
 ভুমি অধিগ্রহণ আইনের জুলাই ১০/ ১৭ এর ৭৫৮৩ ৯।এ বলা আছে ক্ষতিপুরন নির্ধারণের ক্ষেত্রে ১।এ আইনের অধীনে অধিগ্রহণ যোগ্য কোন স্থাবর সম্পত্তির ক্ষতি পুরনের পরিমাণ নির্ধারণ করার সময় সংশ্লিষ্ট স্থাবর সম্পত্তির বাজার অনুয়ায়ী মূল্য নির্ধারন করার কথা। এ চারটি গ্রামের ভুমি অধিগ্রহণে বেলায়  তা অনুসরণ করা হয়নি বলে ভুমি মালিকদের অভিযোগ।
পাশাপাশি হাসানপাড়া গ্রামের বানিজ্যিক শ্রেণির প্রতি শতাংশ জমির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ২০ লক্ষ টাকা যা  ৩ গুন ৬০ লক্ষ টাকা। পাশের  দাগে পালানপাড়া গ্রামে একই শ্রেণীভুক্ত জমির মূল্য নির্ধারন করা  হয়েছে২৩ হাজার ৯ শত ৪৫   টাকার তিন গুনে ৭১ হাজার ৮ শত ৩৬ টাকা মাত্র। এমন অসামঞ্জস্যে মূল্য নির্ধারণ মেনে নিতে পারছেন কোন জমির মালিক।
এমন পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট সকলের হস্তক্ষেপ আশা করে প্রতিকার চায়  ভুক্তভোগীরা।
এ বিষয়ে হাসান পাড়া গ্রামের পালানপাড়ার  ভুমি মালিক মিজানুর রহমান  অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, হাসান পাড়া মৌজায় প্রতি শতাংশ জমির মূল্য  ৬০ লক্ষ আর পালানপাড়া গ্রামে একই শ্রেণীভুক্ত জমির মূল্য ৭১ হাজার এটা মেনে নেওয়া মত নয়। তিনি বলেন, সরকার যদি জমি এমনিতেই  নিতে চায় তাহলে  ভুমি মালিকরা  জমি দিতে বাধ্য।
আর মূল্য প্রদান করা হলে তা অবশ্যই বিবেচনা করে  পূনরায় নির্ধারণ করেই দিতে হবে।
শিক্ষক বিপ্লব বলেন,  এমন অসামঞ্জস্য মেনে নেওয়া মত না।
অথচ গত ১৪ জানুয়ারি ১৮ সালে সাদুল্লাপুর সাব- রেজিষ্ট্রি অভিসে২১৮ দলিল মূলে পালানপাড়া মৌজায় ৪ শতক জমি বিক্রি মূল্য ১৪ লক্ষ টাকার যার প্রতি শতাংশের মূল্য ৩ লক্ষ ৫০ হাজার ৩০ জুলাই /১৯ তারিখে ৩৬৩৬ দলিল মূলে১০ লক্ষ ২৭ আগষ্ট /১৯  তারখে ৪০৪৩ দলিল মূলে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে একশতাংশ জমি ১৫ থেকে ১৭ লক্ষ টাকায় বিক্রি হচ্ছে সেখানে ৭১ হাজার টাকা হাস্যকর।
মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, ধাপেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল কবির মিন্টু, স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক শরিফুল ইসলাম প্রামানিক, রিপন সাহা, ওয়ার্ড মেম্বর শ্রী চম্প কুমার সাহা, সহ এলাকায় সুধী সমাজের ব্যক্তিবর্গ।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ