1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সন্ধ্যা ৬:০৯ আজ সোমবার, ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




কে হচ্ছেন গোবিন্দগঞ্জের পৌরপিতা?

  • সংবাদ সময় : মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১
  • ১১০ বার দেখা হয়েছে

ফারুক হোসেন:
ভোট আগামি ৩০ জানুয়ারি।তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার ২৯ হাজার ৯৭৯ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। বেছে নিবেন পৌরপিতা।
এ নির্বাচনে বৃহত্তম দুই রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্রার্থীসহ মোট ৫জন প্রার্থী মেয়র পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। এখন পৌরবাসীর মনে প্রশ্ন কে হচ্ছেন পৌরপিতা? ভোটারদের এই প্রশ্নের সমাধানে ইতিমধ্যে সকল প্রার্থী বিভিন্ন প্রতিশ্রæতি নিয়ে ভোটরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, মোট ১৫টি ভোটকেন্দ্রের ৯২টি বুথে ভোটগ্রহণ করা হবে। এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থীরা হলেন-উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম (নৌকা),পৌর বিএনপির সভাপতি ফারুক আহমেদ(ধানের শীর্ষ),উপজেলা আওয়ামীলীগের বহিস্কৃত সহসভাপতি মুকিতুর রহমান রাফি (নারিকেল গাছ), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আনিসুর রহমান (হাতপাখা) ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী জহুরা খাতুন আনিকা (মোবাইল ফোন)।এছাড়াও ৯ টি ওয়ার্ডে ৪০ জন কাউন্সিলর প্রার্থী এবং ৩ টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১২ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রার্থীদের ছবি এবং প্রতীক সম্বলিত পোষ্টার টানানো হয়েছে পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়ক, মোড় এবং বাজারের অলিগলিতে। টানানো হয়েছে ব্যনার।প্রতিদিন কাকডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের কাছে। মনযোগ আকর্ষণ করে দিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন ধরণের প্রতিশ্রæতি। পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে সর্বত্রই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। সবমিলিয়ে গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনী মাঠ এখন গরম।

এদিকে সাধারণ ভোটাররা ভাবছেন,অধিকার ও উন্নয়নের কথা।পৌর উন্নয়ন আর সাধারণ নাগরিক সুবিধা যাদের নিকট থেকে পাবে তাদেরকেই তারা ভোট দেয়ার কথা ভাবছেন।কিন্তু ভোট বাধামুক্ত হওয়া নিয়ে শঙ্কায় আছেন তারা। কেন্দ্রে ভোট হবে নাকি বরাবরের মতো কেন্দ্র দখল আর ভোট বর্জনের দৃশ্য আবারো দেখতে হবে এই প্রশ্ন সবার মুখে মুখে। আব্দুল আলিম নামে এক ভোটার বলেন,সুখে দুঃখে যাকে কাছে পাব তাকে ভোট দিব।তবে কেন্দ্রে কেন্দ্রে যাওয়ার নিশ্চয়তা চাই।

অন্যদিকে, ভোটারদের চাহিদা অনুযায়ি পৌরসভার সকল নাগরিকের সাধারণ সুবিধা দেয়ার প্রতিশ্রæতির কথা দিয়ে ভোট চাচ্ছেন মেয়র প্রার্থীগণ। আ’লীগের মেয়রপ্রার্থী খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এর আগে আমি একাধিকবার পৌরসভার কাউন্সিলর পরে জেলা পরিষদের সদস্য হয়ে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। বিজয়ী হলে মানুষের পাশে থাকবো। বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী ফারুক আহমেদ বলেন, মানুষ ভোটাধিকার নিয়ে চিন্তিত। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ধানের শীর্ষের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবেনা। স্বতন্ত্র প্রার্থী মুকিতুর রহমান রাফি জানান, ভোটারদেও কাছে যাচ্ছি। এতে বেশ সাড়া পাচ্ছি।  ব্যক্তিগত ও বিগত সময়ে এলাকারে মানুষের কাছে থাকার মূল্যায়ন বিবেচনা করে ভোটারেরা তাকেও বেঁচে নিবেন এই ব্যাপারে শতভাগ জয়ে আশাবাদি রাফি।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ