1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ৪:২৭ আজ মঙ্গলবার, ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি




গণ উন্নয়ন কেন্দ্র (GUK) এর ৩৬ বছর পূর্তি আজ

  • সংবাদ সময় : শুক্রবার, ১ জানুয়ারি, ২০২১
  • ৯৫ বার দেখা হয়েছে

আফতাব হোসেন:

গণ উন্নয়ন কেন্দ্র (GUK) এর ৩৬ বছর পূর্তি আজ। ১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দের ০১ জানুয়ারি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নারী পুরুষের সমতারভিত্তিতে দারিদ্রমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হিসাবে গাইবান্ধা জেলা সদরের নশরৎপুর গ্রামে প্রতিষ্ঠিত হয় এই সংগঠনটি। বর্তমানে গণ উন্নয়ন কেন্দ্রে গাইবান্ধা জেলা ছাড়াও দেশের ১৩টি জেলায় বাংলাদেশ সরকার, দেশিয় ও আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার সহায়তায় নানামূখী উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। দীর্ঘ ৩৬ বছরের পথচলায় সংস্থাটি নিজস্ব উদ্যোগে সামাজিক উন্নয়নমূলক বেশকিছু কার্যক্রমগ্রহণ করেছে। প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাধ্যমিক, কারিগরি প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে শিক্ষারগুণগত মান উন্নয়নের পাশাপাশি সরকারের মৌলিক সাক্ষরতা ও ঝড়েপড়া শিক্ষার্থীদের নিয়ে সেকেন্ড চান্স এডুকেশন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। এছাড়া দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরিতে যুব নারী-পুরুষদের কারিগরি প্রদান করে প্রাতিষ্ঠানিক ও আত্ম-কর্মসংস্থানে সম্পৃক্ত করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে সংস্থাটির মাধ্যমে অন্ততপক্ষে ১৫ হাজার যুব প্রশিক্ষণ পেয়ে আয়-উপার্জনের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে।
নারীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে নানা ধরণের কার্যক্রম রয়েছে। এছাড়াও নারীদের নেতৃত্ব অর্জনে সংস্থার বেশ ভূমিকা রয়েছে। সংস্থার মাধ্যমে প্রায় ৮০ হাজার পরিবার দারিদ্রতা থেকে মুক্ত হয়েছে। এদিকে, বাল্যবিয়ে রোধ, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে সংগঠনের মাধ্যমে তৈরি হয়েছে অন্ততপক্ষে ১ লাখ ৫০ হাজার চেঞ্জমেকার।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও জলবায়ুর পরিবর্তন নিয়ে সারাদেশব্যাপি সুনামের সাথে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের। বন্যা, নদীভাঙ্গন, শৈত্যপ্রবাহ, টর্ণেডো,সাইক্লোনের মতো দুর্যোগে জিইউকে এর কাজ করার সুনাম দেশে ও বিদেশে। কুড়িগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা জেলায় বিভিন্ন চওে গড়ে তোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র ও ক্লাস্টার ভিলেজ।
এদিকে কক্সবাজারে আশ্রিত বলপ্রয়োগে বাস্তচ্যুত মায়ানমারের নাগরিকদের জন্য ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমে জিইউকে অত্যন্ত দায়িত্বশীল ভূমিকা রেখে যাচ্ছে।
টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমে জিইউকে সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসাবে ভুমিকা পালন করে থাকে। এছাড়াও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের, উন্নত কৃষিপ্রযুক্তির সাথে দরিদ্র নারী পুরুষকে সম্পৃক্তকরণ, পানি ও পয়ঃনিস্কাষন ব্যবস্থার উন্নয়ন, সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে সকল মানুষজনের প্রবেশাধিকার বৃদ্ধি, তথ্য ও প্রযুক্তি সেবাসহ উন্নয়নের সকল ক্ষেত্রেই গণ উন্নয়ন কেন্দ্রে’র ছোঁয়া রয়েছে।
এদিকে সংস্থার নিজস্ব উদ্যোগে গড়ে উঠেছে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বহুমূখী ফার্ম, যেখানে নার্সারী, মৎস্য, গাবাদিপশু, হাঁস-মুরগি পালন করা হয়। রয়েছে সুপার টেস্টি ফুড নামে একটি বেকারী, মাদকাসক্তি নিরাময় ও পূনর্বাসন কেন্দ্র, ডায়াগনিষ্টিক ও ফিজওথারাপি সেন্টার, প্রিন্টিং প্রেস। সংস্থার গাইবান্ধার প্রধান কার্যালয়ে আবাসিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও ডাইনিং সুবিধা।
এছাড়া জিইউকের ব্যবস্থাপনায় দৈনিক আজকের জনগণ নামে একটি পত্রিকা প্রকাশিত হয়ে আসছে। অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে একটি অনলাইট টিভি ও রেডিও।
বর্তমানে এই সংস্থায় ৩ হাজার ৫শ কর্মী যুক্ত রয়েছে। প্রায় ১০ লাখ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার নারী পুরুষের জীবনমানের টেকসই উন্নয়নে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে গণ উন্নয়ন কাজ করে যাচ্ছে। বেসরকারি পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ সংস্থা গণ উন্নয়ন কেন্দ্র ইতোমধ্যে বর্তমান সরকারের নিকট শ্রেষ্ঠত্বের স্বীকৃতি পেয়েছে।
গণ উন্নয়ন কেন্দ্র (GUK) এর ৩৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সংস্থার প্রতিষ্ঠা ও নির্বাহী প্রধান এম.আবদুস্্ সালাম দেশে-বিদেশের সকল শুভান্যধায়ীদেরপ্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ