1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সকাল ৮:১০ আজ মঙ্গলবার, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি




অধ্যাপক মাজহারউল মান্নান স্যারের বর্ণাঢ্য জীবনের সংক্ষিপ্ত চিত্র

  • সংবাদ সময় : সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০
  • ২৩৯ বার দেখা হয়েছে

আফতাব হোসেন: অধ্যাপক মাজাহারউল মান্নান। গাইবান্ধার গিদারীর ইউনিয়নের বাগুড়িয়া গ্রামে ১৯৪০ সালের ১৫ অক্টোবর জন্ম। পড়ালেখা প্রাইমারী নিজগ্রামে, হাইস্কুল আশপাশের স্কুল শেষে মএইচ মডার্ণ হাইস্কুলে এসে ১৯৬০ সালে মেট্রিক পাশ করেন। এই সময়টা তার কেটেছে নিদারুন কষ্টে-ক্লিষ্টে। কখনও অন্যের বাড়িতে কাজ করে কখনও লজিং থেকে অন্যের ছেলে মেয়েকে পড়িয়ে নিজের পড়া-লেখার খরচ যুগিয়েছেন। এপর ইন্টারমেডিয়েট পাস করেন গাইবান্ধা কলেজ থেকে। এরপর বহু চেষ্টা করে কষ্টের পর কারমাইকেল কলেজে বাংলা সাহিত্যে অর্নার্সে ভর্তি হন। ১৯৬৫ সালে শিক্ষা বোর্ডে কৃতত্বপূর্ণ ফল করে অনার্স পাস করেন। একই বিষয়ে ১৯৬৬ সালে এমএ সম্পন্ন করেন।
চাকুরী জীবনের শুরুতেই তিনি নলডাঙ্গা কলেজে প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ হিসেবে জীবন শুরুকরেন। বছর দুয়েক পরেই চলে আসেন গাইবান্ধা কলেজে। ১৯৮৩ সালে বদলি হয়ে চলে যান কারমাইকেল কলেজে। সেখান থেকেই থেকেই অবসর গ্রহণ করেন ১৯৯৯ সালের অক্টোবর মাসে।
অবসর গ্রহণ করার পরপরই গাইবান্ধার আহম্মদ উদ্দিন শাহ স্কুল ও কলেজে উপাধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৬ সালের শেষে তিনি অধ্যক্ষ শ্রদ্ধেয় প্রফেসর রমজান আলী স্যারের মৃত্যুর একই প্রতিষ্ঠানে তিনি অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব শুরু করেন এবং শেষ পর্যন্ত এই প্রিয় প্রতিষ্ঠান থেকেই চলতি মাসে স্বেচ্ছায় অবসরে যান।
শিক্ষকতা জীবনে তিনি কিংবদন্তিতুল্য ছাত্র প্রিয়তা অর্জন করেন। তার পুরনো এবং নতুন ছাত্ররা এখন তাকে জীবনের সেরা শিক্ষক বলেই মনে করেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি জনগণের জন্য কাজ করেছেন অনেক। দীর্ঘ ১৪ বছর রেডক্রসে মানবতার সেবাই ছুটে গেছেন এই জেলার আনাছে-কানাছে। মানুষের আপদে বিপদে ঝড়ে-তুফানে বন্যায় খরায় সহায্য সহযোগিতা করেছেন।
সমাজ বদলের আকাংখা নিয়ে তাকে দীর্ঘ ৩ বছর একটানা কারাবরনও করতে হয়েছে। তার আছে বেশ কিছু প্রকাশনা। এরমধ্যে আত্মজীবনমূলক গ্রন্থ চোখ ভিজে যায় জলে, হাজার হাজার পাঠককে অশ্রæশিক্ত করেছে। এছাড়াও কারাগারে কারাবাসে, জীবনপড়ে তুষের আগুন, গবেষনাধর্মী গন্ত গাঁও গেরামের কথা উলে­খযোগ্য। তাঁর লেখা অসংখ্য গল্প, কবিতা জাতীয় পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। তিনি কর্মজীবনের গুণী এই শিক্ষক অসংখ্য সম্মাননা ও পুরুস্কারও অর্জন করেছেন।
তাদের একমাত্র ছেলে একমাত্র ছেলে টুটুল মেরিন ইঞ্জিনিয়ার, সিংগাপুরে নাগরিকত্ব নিয়ে বসবাস করছেন। ২ মেয়ে কলেজ শিক্ষক, সাহানা ও মনিষা ঢাকা এবং রাজশাহীতে। স্ত্রী নাজমা মান্নান একজন আদর্শ হিসেবে গৃহিনী মাজহারউল মান্নানকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ