1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সন্ধ্যা ৭:৪৬ আজ শনিবার, ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি




সাঘাটায় পাকুরতলা সেতুর সংযোগ নিয়ে জটিলতা ॥ ঘর-বাড়ি,দোকানপাট ভাংচুর লুটপাট আহত ১০ জন

  • সংবাদ সময় : শুক্রবার, ৮ মে, ২০২০
  • ১৬২ বার দেখা হয়েছে

সাঘাটা প্রতিনিধি:
গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার কামালেরপাড়া ইউনিয়নে বাঙ্গালী নদীর উপর নব নির্মিত পাকুরতলা সেতুর পশ্চিম অংশের সংযোগ সড়ক নির্মান নিয়ে চলমান জটিলতায় ফলিয়া দিগর (পাকুড়তলা) গ্রামের দুটি পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে নারী পুরুষসহ অন্ততপক্ষ ১০জন আহত হয়েছে। এসময় দোকানপাট, বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনাও ঘটে।
এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে,সাঘাটা উপজেলার কামালেরপাড়া ইউনিয়নের সাথে সোনাতলা ও গোবিন্দগঞ্জ দু’উপজেলার যোগাযোগের জন্য বাংগালী নদীর উপর নবনির্মিত ফলিয়া (পাকুড়তলা) ব্রিজের পশ্চিম পাড়ে নতুন রাস্তা নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সাথে জমির মালিকদের বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায় রাস্তার নির্মাণ কাজ স্থগিত হয়। এতে করে ওই গ্রামের মৃত আব্দুল গণির ছেলে এমদাদুল হক ও সেকেন্দার আলীর ছেলে তোতা মিয়ার নেতৃত্বে একটি প্রভাবশালী মহল প্রকৌশল অধিদপ্তরের পক্ষ নিয়ে ওই জমির মালিকদের সাথে বিরোধে জড়িয়ে পড়ে।
জমির মালিকরা জানান,৪০ সালের রেকডভুক্ত পুরাতন রাস্তা রয়েছে। তা পূনঃনির্মণ না করে আমাদের আবাদি জমি নষ্ট করে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল নিজের সুবিধার জন্য স্থানীয় সারকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সাথে যোগস্াজসে নতুন নক্শা তৈরি করে রাস্তা নির্মাণ করার পায়তারা করছে। আমরা ঘটনাটি জানার পর ম্যাপ পরিবর্তনের জন্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে আবেদন করেছ্।ি কিন্তু স্থানীয় সরকার প্রকৌশল রাস্তার ম্যাপ পরিবর্তন না করে ন্থানীয় প্রভাবশালী লোকজনকে উষকিয়ে আমাদের পক্ষের নিরহ লোকজনের বাড়ি-ঘরে হামলা ভাংচুর ,লুটপাটসহ নানা ভাবে ক্ষতি সাধন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার বিকেলে জমির মালিক পক্ষের একজন ফলিয়া দিগর (পাকুড়তলা) গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে জয়দুল ইসলাম মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি থেকে সোনাতলা যাবার সময় তার পথ রোধ করে প্রতিপক্ষ এমদাদুল হক ও তোতা মিয়ার লোকজন জয়দুলকে মারপিট করে জানান। এর কিছুক্ষণ পরেই আবার প্রভাবশালী পক্ষটি সংঘবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে নিরহ লোকজনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ,দোকান ভাংচুর ও টাকা জিনিসপত্র লুট করে। এতে অন্ততপক্ষে ৭ ব্যক্তির বাড়ি Ñঘর ও দোকানের ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। এসময় বাঁধা দিতে গিয়ে মহিলাসহ ৬ জন আহত হয়। আহতরা হলেন, চম্পা (১৮), আমিনুল (২১), ফিরাজুল (৪৫), শহিদুল (৪২), মহিদুল (৪৩), দেলোয়ার(৪০)। আহতদেরকে সাঘাটা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের সকলের অবস্থা আশংকাজন। এব্যাপারে জয়দুল ইসলাম বাদি হয়ে ৩১ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছে।
এবিষয়ে এমদাদুল হক মাস্টার জানান, সোনাতলা ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাথে সংযোগ করতে সরকার গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের জন্য জমিঅধিগ্রহণ করেছে। দুরত্ব ও টেকসই এর জন্যই সরকার সবকিছু বিবেচনা করে এই সিন্ধান্ত নেয়। কিন্ত এলাকার কিছু লোকজন নিজেদের বাড়ির উপর দিয়ে সড়কটি নেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত কাজে বাধা দিয়ে আসছে। যার ফলেই কথা কাটাক্ািটর মধ্যে এই সংঘর্ষ বাধে বলে তিনি জানান। এতে করে দু’পক্ষের লোকজন আহত হয় বলেও তিনি জানান। তারাও মামলা করার প্রস্তÍতি নিচ্ছেন বলে জানান।
সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী সাবিউল ইসলাম জানান, সাঘাটা সাথে গোবিন্দগঞ্জ ও বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার সাথে যোগাযোগ দুরত্ব কমিয়ে আনতে ব্ঙ্গাালী নদীর উপর একটি ব্রীজ নির্মান শেষ হয়। কিন্তু স্থানীয় দু’টি পক্ষ তাদের স্থানীয় আদিপাত্য বিস্তার নিয়ে সংযোগ সড়ক নির্মান কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে আসছে। বিষয়টি নিয়ে কয়েক দফা বসেও সমাধান হয়নি বলে তিনি জানান।
এঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। সাঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ