1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৩:৫১ আজ শুক্রবার, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি




এক দিনেই চীনের মোট মৃত্যুকে ছাড়াল যুক্তরাষ্ট্র

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২০
  • ১২০ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট:করোনা ভাইরাসে মৃত্যুর দিক দিয়ে ভয়ংকর রেকর্ড গড়ল যুক্তরাষ্ট্র। এক দিনেই দেশটিতে সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হলো। এই মৃত্যু চীনের মোট মৃত্যুকেও ছাড়িয়ে গেছে। তার পরও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন ধীরে ধীরে সবকিছু খুলে দেওয়ার চিন্তা করছে। বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ২২ লাখ এবং দেড় লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে কেবল যুক্তরাষ্ট্রেই মারা গেছে প্রায় ৩৬ হাজার।

 করোনা ভয়ংকর হয়ে উঠছে যুক্তরাষ্ট্রে

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাত ৮টা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় মারা যায় ৪ হাজার ৫৯১ জন। এর আগের দিন বুধবার মৃত্যু ছিল ২ হাজার ৫৬৯ জন। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য বিশ্লেষণ করে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এই তথ্য প্রকাশ করেছে। গতকাল রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডো মিটারের তথ্যে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৬ লাখ ৯০ হাজার ৮০০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩৫ হাজার ৯৫৫ জনের। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দেশটিতে শুক্রবার মারা গেছে ১ হাজার ৩৩৮ জন। নিউ জার্সির অ্যান্ডোভার সুবাকিউট অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টার নামের নার্সিং হোম থেকে ১৭ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানিয়েছে, করোনা ভাইরাসের উত্পত্তিস্থল উহানে মৃত্যু ১ হাজার ২৯০ জন বেড়ে ৩ হাজার ৮৬৯ জনে পৌঁছেছে। এ নিয়ে চীনে মোট মৃত্যু ৪ হাজার ৪৬২ জন। তবে ওয়ার্ল্ডো মিটার জানায়, চীনে মোট মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৬৩২ জনের। ওয়ার্ল্ডো মিটার আরো জানায়, করোনায় বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ২২ লাখ ২২ হাজার ৯৭৪ জন এবং মৃত্যু ১ লাখ ৫২ হাজার ৩১৮ জনের।

সৌদিতে ঘরে বসেই নামাজ

সৌদি আরবের সংবাদপত্র ওকাজ জানিয়েছে, দেশটির গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আবদুল আজিজ আল আল শেখ বলেছেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এভাবে বাড়তে থাকলে রমজান মাস এবং ঈদের নামাজ ঘরে বসেই আদায় করতে হবে। এমনকি তারাবির নামাজও তিনি ঘরে বসে আদায়ের পরামর্শ দিয়েছেন। এদিকে পাকিস্তানে গতকাল নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে অনেক মসজিদে একত্রে জুমার নামাজ আদায় করা হয়। এক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্বও মানা হয়নি। ইসলামাবাদের লাল মসজিদে ধর্মীয় নেতা আবদুল আজিজের নেতৃত্বে সবাই নামাজে অংশ নেন। পুরো মসজিদই মুসল্লিতে পূর্ণ হয়ে যায়। দেশটিতে ৭ হাজার ৩৭৯ জন আক্রান্ত এবং ১৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যান্য দেশের চিত্র

২৪ ঘণ্টায় ৮৪৭ জনের মৃত্যুসহ ব্রিটেনে ১৪ হাজার ৫৭৬ জন মারা গেছে। আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৮ হাজার ৬৯২ জন। লন্ডনের মেয়র সাদিক খান নাগরিকদের মাস্ক পরার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি পরিবহন ও অফিস-আদালতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার আহ্বান জানিয়েছেন। স্পেনে এক দিনে কোভিড-১৯ রোগে ৫৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার মৃত্যু হয়েছিল ৫৫১ জনের। দেশটিতে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৯ হাজার ৩১৫ জনের। আক্রান্ত ১ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪৮ জন।

এবার কোনো ধরণের অস্ত্রের প্রদর্শনী ছাড়াই অনুষ্ঠিত হল ইরানের সেনাবাহিনী দিবস। অস্ত্রের প্রদর্শনির পরিবর্তে কুচকাওয়াজে অংশ নেয় জীবানুমুক্তকারী বাহন, মোবাইল হাসপাতাল ও অন্যান্য চিকিত্সা সরঞ্জামাদি। এই দুর্যোগে মানুষের মধ্যে শক্তি জোগাতে এমন অভিনব কায়দায় কুচকাওয়াজ আয়োজন করে দেশটি।

ফিলিপাইনে জেলখানায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। একটি জেলে ১৮ জন আক্রান্ত হয়েছে। আরেকটিতেও ৩০ জনের পজিটিভ। ফলে আরো বন্দি মুক্তি দেওয়ার দাবি জোরালো হচ্ছে দেশটিতে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আফ্রিকা শাখা সতর্ক করেছে, ছয় মাসের মধ্যে আফ্রিকায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ছাড়াতে পারে। কাতারে ২৪ ঘণ্টায় ৫৬০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

লকডাউনের মধ্যেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে ভারতে। শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ১২৬ জন। এ নিয়ে সারাদেশে মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১৩ হাজার ৮৮৫। মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি নিয়েও উদ্বিগ্ন সরকার। ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩২ জনের মৃত্যুতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৫২ জনে।

দেশের মধ্যে কেরালায় প্রথম করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে তিন জনের। আবার কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণেও সাফল্যের শীর্ষে দক্ষিণের এই রাজ্য। দ্রুত নিয়ন্ত্রণের চাবিকাঠি হিসেবে চিকিত্সকরা প্রায় গণহারে করোনার পরীক্ষা কথা বলেছেন। কিন্তু সেখানেই থেমে না থেকে আরো কঠোর নিয়ম কার্যকর করা হয়েছে রাজ্যে। ১৪ দিন নয়, সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকলেই ২৮ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছিল। করোনা যুদ্ধে কেরালার সাফল্যের অন্যতম কারণ সেটাও বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সারা দেশে যখন লকডাউন চলছে এবং সব ধরণের ধর্মীয় এবং সামাজিক জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে, তার মধ্যেই কর্ণাটক রাজ্যে একটি হিন্দু উত্সবে কয়েকশ’ মানুষ জড়ো হয়েছিলেন।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ