1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ৯:১০ আজ মঙ্গলবার, ৩রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




নির্দেশনা অমান্য করলেই আইনপ্রয়োগ

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৫০ বার দেখা হয়েছে

গাইবান্ধা প্রতিনিধি.
অবশেষে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গাইবান্ধাকে অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুল মতিন শুক্রবার বেলা ১টায় এই গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে অবরুদ্ধ (লকডাউন) এর ঘোষনা করার পর জেলার সকল গুরুত্বপূর্ণ সড়কে পুলিশের চেক পোস্ট বসানো হয়েছে। কোন কারন ছাড়া কেউ রাস্তায় বের হলে তাকে বাড়িতে ফেরত পাঠানো হচ্ছে আবার  এই আইন অমান্য করলেই তার বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হচ্ছে।
এর আগে শুক্রবার সকালে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
গাইবান্ধা জেলায় গত ২২ মার্চ আমেরিকা প্রবাসি ওই দুইজনের ( মা ও ছেলে) করোনা ভাইরাস ‘পজেটিভ’ ধরা পড়ে। এই ঘটনার পর থেকে জেলা জুড়ে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। পরে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত সাদুল্লাপুর উপজেলা কমিটি ওই দিন (২২ মার্চ) দুপুরে এক আলোচনা সভায় সাদুল্লাপুরকে লকডাউন করা সিন্ধান্ত গ্রহণ করে। বিকালে তা অনুমোদনের জন্য জেলা কমিটিতে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু জেলা কমিটি তা অনুমোদন দেন নাই। পরবর্তীতে ওই দুই আমেরিকা প্রবাসি সংস্পর্শে এসে আরও ৬ জন ব্যক্তির করোনা ভাইরাস ‘পজেটিভ’ সনাক্ত হয়। এছাড়া গত দুই-তিন থেকে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমিত হটস্পট ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে নৌ-পথ ও সড়ক পথে গাইবান্ধায় বানের পানির মতো লোকজন আসা শুরু হলে জেলাবাসীর দাবির মুখে এই অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষণা করা হয়।  
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জেলা সিভিল সার্জন এর সুপারিশক্রমে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনা ক্রমে এবং সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মুল) আইন ২০১৮ ( ২০১৮ সনের ৬১ নং আইন) এর ১১(১)(২)(৩) ধারা মোতাবেক ‘গাইবান্ধা জেলাকে অবরুদ্ধ (লকডাউন) ঘোষনা করা হল।
আরও উল্লেখ করা হয়, ফলে এ জেলা হতে অন্য কোন জেলায় গমন করতে পারবেন না। জেলার অভ্যন্তরে আন্ত: উপজেলা যাতায়াতের ক্ষেত্রেও এইরূপ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।  সকল ধরণের গণ পরিবহন, জনসমাগম বন্ধ থাকবে। তবে জরুরূ পরিসেবা যেমন চিকিৎসা, খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ ও সংগ্রহ ইত্যাদি এর আওতা বর্হিভুত থাকবে। জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ শুক্রবার বিকাল ৫টা হতে কার্যকর করা হয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ আদেশ বলবৎ থাকবে। আদেশ অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত. ওই দুই আমেরিকা প্রবাসি গত ১১ মার্চ এক বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার হবিুল্লাপুর গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়ীতে আসেন। তারা ওই বাড়িতে গত ১১, ১২ ও ১৩ মার্চ অর্ধশতাধিক লোকজনের সাথে অবস্থান করেন। পরে গত ১৪ মার্চ বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ খেয়ে তারা নিজ বাড়ী গাইবান্ধা শহরের খাঁ পাড়ায় যান। সেখান থেকে আবারও তারা জেলার বিভিন্ন এলাকায় তাদের আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতে বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদান ও প্রত্যাহিক কাজকর্মে বিভিন্ন জায়গায় যান। এদিকে ওই দুই আমেরিকা প্রবাসি ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা লোকজন পরবর্তীতে গত ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত গাইবান্ধা-৩ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোট প্রদান করেন। এছাড়া তারা বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান যোগদান ও প্রত্যাহিক কাজকর্মে বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া অব্যাহত রাখে। এই অবস্থায় ওই দুইজনের মধ্যে করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দিলে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখে। এদিকে ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) লোকজন তাদের নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যান। গত ২২ মার্চ ঢাকা থেকে খবর আসে, পরীক্ষায় করোনা ভাইরাস ‘পজিটিভ’ আসে। পরে তাদের সংস্পর্শে আসা আরও ৬ জনের করোনা ভাইরাস ‘পজিটিভ’ সানক্ত হয়।
অন্যদিকে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমিত হটস্পট ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে নৌ-পথ ও সড়ক পথে নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে গাইবান্ধা আসা ২ শতাধিক ব্যক্তিকে শুক্রবার পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ