1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৪:৩২ আজ বৃহস্পতিবার, ২৫শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই জুলাই, ২০২০ ইং, ১৮ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী




গিতা রানীর স্বপ্নের বাড়ি

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১৪ মার্চ, ২০২০
  • ৪৩ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট:
গীতা রানী (৩৫), বসবাস করেন গাইবান্ধা সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের যুগিপাড়া গ্রামে। স্বামী ও দু’সন্তান নিয়েই নিয়েই তাদের পরিবার। গীতা রানীর স্বামী কাকরু বংশানুক্রমে চুন তৈরি ও বিক্রি করে কোনভাবে দিন চালায়। মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণি ও ছেলে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়া-শুনা করে। গীতা রানী স্বামীর বাড়িতে আসার পর থেকেই  চুন তৈরিতে স্বামীকে সহায়তা করে। কিন্ত প্রতিদিন চুন বিক্রি না হওয়ায় তাদের ব্যবসাও অনেকটা ঝিমিয়ে পড়ে। এভাবে বছরের পর বছর পার করলেও তাদের সংসারে অভাব-অনটন দূর হয়নি। ২০১১ সালে স্বামী কাকরু মারাত্বকভাবে অসুস্থ হয়ে পরে। চিকিৎসার জন্য তার বসতভিটা ও থাকার ঘরটিও বিক্রি করতে হয়। এসময় সংসারের পুরো দায়ভার আসে গীতা রানীর উপর।  কোনভাবে পলিথিন মোরানো ঘরে তারা কষ্টে জীবন যাপন করতে থাকে। গেল বছর বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা গণ উন্নয়ন কেন্দ্র (জিইউকে) এর মাধ্যমে সিডস্ প্রকল্পের সদস্যভুক্ত হন। উন্নয়নে নিজের পরিবারের সক্ষমতা, দুর্বলতা, সীমাবদ্ধতা, সুযোগ ও সম্ভাবনার একটি চিত্র একে স্বপ্ন দেখেন কিভাবে নিজের উন্নয়ন করা হয়।  স্বপ্ন অনুযায়ী কিছুটা অগ্রসরও হলেও ২০১৯ এর বন্যা তার স্বপ্ন বাস্তবায়নে বাঁধা হয়ে দাড়ায়। এসময় সে জিইউকে’র মাধ্যমে একটি প্রকল্পে ৪৫০০ টাকা সহায়তা ও একটি টিনের ঘর সহায়তা পান। ঘরটি পেয়ে তাদের মুখে হাসি ফোটে, নিরাপদ ও আনন্দে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বসবাস করছেন।
এখন গীতার স্বপ্ন পরিকল্পনা অনুযায়ী নিজে আত্মনির্ভর হওয়া। সেভাই তিনি এগিয়ে যাচ্ছেন, চুন তৈরির পাশা-পাশি বাড়ির ভিটায় নানা ধরণের সবজি ও হাঁস-মুরগি পালন করে অভাব অনটন অনেকটাই  দুর করেছেন।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ