1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৫:১০ আজ শুক্রবার, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি




গোবিন্দগঞ্জে ওড়াঁও আদিবাসীদের কারাম উৎসব

  • সংবাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১২২ বার দেখা হয়েছে

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি:
গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শাখাহার ইউনিয়নের পশ্চিম দইহারা গ্রামের শিহিগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গতকাল বৃহস্পতিবার এখানে প্রথমবারের মত আদিবাসি ওড়াঁও সম্প্রদায় কারাম উৎসব পালিত হয়। এতে পাশ্ববর্তী নওগাঁ, নাটোর, দিনাজপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত ওড়াঁও জনগোষ্ঠীর বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন এ কারাম উৎসবে যোগ দেয়। এই উৎসবে তাদের নিজেদের ভাষা সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়। যা সাংস্কৃতিক বৈচিত্রের নবজাগরণের সূচনা করে। কারাম উৎসব উদ্্যাপন কমিটি, বেসরকারি সংগঠন অবলম্বন ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এই উৎসব পালন করা হয়।
কারাম উৎসব উদ্্যাপন কমিটির আহবায়ক সুরেন তিগ্যার সভাপতিত্বে এ উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান, শাখাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাহাজুল ইসলাম, অবলম্বনের নির্বাহী পরিচালক প্রবীর চক্রবর্তী, আদিবাসী শিক্ষক সুশীল টপ্য, গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই নুরুল ইসলাম, শাখাহার ইউনিয়নের মেম্বার গোলাম আহমেদ গোলাপ, গুল রায়হান রেবা, অবলম্বনের তোফাজ্জল হোসেন, দিপ্তী মুরমু, আবিনা টপ্য, সরলা মিনজি, লিটন তিগ্যা প্রমুখ।
উল্লেখ, কারাম উৎসব সম্পর্কে জানা যায়, কারাম ওরাও জাতি গোষ্ঠীর একটি পবিত্র গাছ- যা মঙ্গলের প্রতিক। প্রতি বছর বংশপরম্পরায় এ উৎসব পালন করা হয়। এ উৎসবকে ঘিরে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সমস্ত ওরাও সম্প্রদায়ের লোকজন আনন্দে উচ্ছলতায় মুখরিত হয়ে ওঠে। পূজার সময় আদিবাসীদের দুই সহোদর ধর্মা ও কর্মার জীবনী তুলে ধরেন তাদের ধর্মগুরু। আদিবাসী বিশ্বাস করে ধর্ম পালন করায় ধর্মা রক্ষা পান সব বিপদের হাত থেকে। আর কর্মা ধর্ম পালন না করায় তার ক্ষতি হয়। উৎসবে ওড়াঁও সম্প্রদায়ের লোকজন উপবাস করে কারাম গাছের ডাল কেটে আনেন। কারাম ডাল কেটে অস্থায়ী মন্ডপে পুঁতে রেখে পূজা-অর্চনা আর নাচ-গান ও কিচ্ছা বলার মধ্য দিয়ে এ উৎসব করা শুরু হয়। এ সময় পুরো এলাকা ওড়াঁও সহ সব সম্প্রদায় হয়ে ওঠে মিলনমেলা।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ