1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ১০:২০ আজ বুধবার, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




ডিপিডিসি’র নির্বাহী পরিচালকের এত সম্পদ!

  • সংবাদ সময় : মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১৮৭ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা বিদ্যুৎ বিতরণ কর্তৃপক্ষ (ডিপিডিসি)-এর নির্বাহী পরিচালক রমিজ উদ্দিন সরকারের সম্পদ ক্রোক করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল সংস্থাটির এক আবেদনের প্রেক্ষিতে মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিশেষ জজ ইমরুল কায়েশ তার সম্পদ ক্রোকের আদেশ দেন। এর আগে গত ৬ই অক্টোবর দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ রমিজের বিরুদ্ধে মামলা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন মামলাটি করেন। ডিপিডিসির এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তিন কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, সম্পদের তথ্য গোপন ও অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয়। মামলার এজাহারে বলা হয়, দুদকে জমা দেয়া সম্পদ বিবরণীতে রমিজ এক কোটি ১৮ লাখ ৯২ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন। এছাড়া দুদকের অনুসন্ধানে তার নামে-বেনামে এক কোটি ৯৫ লাখ ৭৯ হাজার ৮৬৭ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের তথ্য মিলেছে। অন্যদিকে, মানি লন্ডারিং আইনে তার বিরুদ্ধে দুই কোটি ৬১ লাখ ৭৯ হাজার ৮৬৭ টাকা স্থানান্তর ও রূপান্তরের অভিযোগ আনা হয়।চলতি বছরের ৭ মার্চ শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ঢাকা পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) নির্বাহী পরিচালক প্রকৌশলী মো. রমিজ উদ্দিন সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
গত ৪ঠা মার্চ ডিপিডিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী রমিজকে তলব করে চিঠি পাঠানো হয়। এর আগে তার নামে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের খোঁজ পেয়ে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। দুদকের প্রাথমিক অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে রমিজ-সালমা দম্পতির কোটি কোটি টাকার সম্পদ। তাদের নামে বাড়ি, গাড়ি, জমি, প্লট, ফ্ল্যাট, ব্যাংকে জমানো টাকাসহ নানা সম্পদের প্রমাণ মিলেছে। মাত্র কয়েক মাসের অনুসন্ধানে তাদের নামে প্রায় অর্ধশত কোটি টাকার সম্পদের তথ্য-প্রমাণ দুদকের হাতে এসেছে। সরকারের স্বার্থ রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিয়ে চাকরিতে যোগ দিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিজে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন উচ্চপদস্থ এ কর্মকর্তা। সূত্র জানায়, গত বছরেই রমিজ দম্পতির বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের একটি অভিযোগ জমা পড়ে দুদকে। কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অভিযোগটি অনুসন্ধান করছেন দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. সহিদুর রহমান। গত ২৬ই ডিসেম্বর রমিজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হলে তিনি হাজির হননি। ১৭ই জানুয়ারি সম্পদের হিসাব চেয়ে ওই দম্পতির কাছে নোটিশ পাঠানো হলে রমিজ নিজের ও তার স্ত্রীর পক্ষে নোটিশ দুটি গ্রহণ করেন।
দুদকের অনুসন্ধান সূত্র বলছে, ডিপিডিসির নামে কোটি টাকার স্থাবর সম্পদ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে রয়েছে- উত্তরা ৫নং সেক্টরের ২নং রোডের ১৩ নম্বর প্লটে সাত তলা বিলাসবহুল বাড়ি। জমির মূল্য ও বাড়ি নির্মাণ ব্যয় ৩ কোটি টাকা। মিরপুরের পূর্ব মনিপুরের ১৩০৭/ডি প্লটে ছয়তলা বাড়ির মূল্য ২ কোটি ৭০ লাখ টাকা। রামপুরা মহানগর হাউজিংয়ের ডি ব্লকের ২০২ নম্বর প্লটের ৪ কাঠা ৫ শতাংশ জমিতে ৫টি দোকান ও একটি টিনশেড বাড়ির মূল্য ২ কোটি টাকা। পূর্ব রামপুরার ১৭৭/৫/১ নম্বর প্লটের ৯.৪৮ শতাংশ জমিতে নির্মিত বাড়ি, ঢাকায় ৯.৪৮ শতাংশ জমি ও তার ওপর বাড়ি, মিরপুর সেনপাড়ায় ছয়তলা বাড়ি নির্মাণ, টঙ্গী ও গাজীপুরে নামে- বেনামে ৩০ একর জমি, কুমিল্লা গ্রামের বাড়িতে রয়েছে বেশ কয়েক একর জমি এবং মুরাদনগর উপজেলায় স্ত্রীর নামে ৫০ বিঘা জমি রয়েছে। এছাড়া ঢাকার শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বিভিন্ন কোম্পানির ৭৮ লাখ ১৮ হাজার ৫৯৮ টাকার শেয়ার ক্রয় করেছেন রমিজ। তার নামে ইসলামী ব্যাংক মতিঝিল শাখায় কয়েক কোটি টাকার ডিপোজিট রয়েছে। অন্য দিকে অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, রমিজ উদ্দিন সরকারের স্ত্রী সালমা পারভীনের নামে মিরপুরের মল্লিকা মিল্ক ভিটা রোডে ২৮ নম্বর বাড়ির চারতলায় একটি ফ্ল্যাট রয়েছে। এর মূল্য ৪০ লাখ টাকা। সাড়ে ৭ লাখ টাকার কৃষিসম্পদ পাওয়া গেছে তার নামে। তাছাড়া সালমা পারভীনের অস্থাবর সম্পদের মধ্যে ৬ লাখ ৩৪ হাজার টাকার শেয়ার, ১৮ লাখ ৫০ টাকা মূল্যের প্রাইভেটকার, ২ লাখ ৮০ হাজার টাকার আসবাবপত্র, ২ লাখ ৭০ হাজার ৫০০ টাকার ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী এবং ব্যাংকে গচ্ছিত ৯ লাখ ৮৩ হাজার ২৪২ টাকার সম্পদের প্রমাণ মেলে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ