1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৫:০৬ আজ শুক্রবার, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি




সাঘাটা হাসপাতালে এডিস মশা নিধনের নামে লক্ষ টাকার হিসাব মেলাতে নানা কৌশল!

  • সংবাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৯
  • ১৬৩ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্ট: সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভেতরে কোয়াটারের আশে পাশের ঝোপঝাড়, আগাছা, ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা ও মশা নিধনে স্প্রে করার জন্য সরকার একলক্ষ টাকা বরাদ্ধ করেছে। সেই টাকা উত্তোলন করে কোন প্রকার অর্থ ব্যয় না করে অফিসের সুইপার ও পিয়নদের থেকে শুধু গাছের পাতা পরিষ্কার করে নিয়ে সব টাকা আত্মসাতের পায়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে সিভিল সার্জনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন হাসপাতালের আশপাশের জনগণ।
সরেজমিনে ২৮ আগষ্ট সকালে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, কোয়ার্টার ও হাসপাতালের চারপাশে ময়লা আবর্জনায় ভর্তি। কর্মকর্তা কর্মচারিদের কোয়াটারের আশে পাশে ফাঁকা স্থানগুলি হলুদের গাছ, ভেটের গাছ, পাহাড়ী কলমি ও আবর্জনায় ভর্তি যা মশা-মাছির অভয়ারণ্য। আগাছা গুলির মাঝে মশা মাছি ভো ভো করছে। ছবি তুলতে গেলেও মশা কামড় দিচ্ছিলো।এছাড়া হাসপাতালের মাঠের পুর্ব পাশে প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তাদের কোয়াটারের পাশে নোংরা পানি জমে রয়েছে। সেখানেও মশা মাছি উড়ছে। এসব দেখার সময় যেন কারো নেই।
এব্যাপারে ক্যাশিয়ার ওয়াসিম মন্ডলের সাথে কথা বললে তিনি জানান, ডেঙ্গু রোগের জীবাণু বাহক এডিস মশা নিধনে হাসপাতালের চারপাশের আগাছা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও হাসপাতালের ভেতরে স্প্রে কেনার/করার জন্য সরকার এক লাখ টাকা বরাদ্দ রয়েছে। সেই টাকা উত্তোলনও করা হয়েছে। এখনো আগাছা পরিষ্কার করা হয়নি কেন বললে তিনি জানান, বাহির থেকে লেবার নিলে টাকা বেশি ব্যয় হয় তাই সুইপার ও অন্যান্য কর্মচারিদের দিয়ে পরিষ্কার করে নেয়া হয়েছে। এ টাকা তাদের দেয়া হবে। তাতে ব্যয় কিছুটা সাশ্রয় হবে। বাকী টাকার স্প্রে কিনবে।
এসময় আমার সাথে হাসপাতালের চারপাশে দেখার জন্য স্বাক্ষী হিসেবে এমটিইপিআই টেকনিশিয়ানকে কিছু বুঝতে না দিয়ে তাকে সাথে রেখে হাসপাতালের ভেতরে আগাছা ও ময়লা আবর্জনার ছবি এবং ভিডিও করা হয়। আগাছায় ভর্তি ও মাঠের সব জায়গায় অপরিচ্ছন্ন দেখে তিনিও অবাক হন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালে কর্মরত কয়েকজন জানান, অদ্যবধি কোন প্রকার এডিস মশা নিধনে কোন প্রকার স্প্রে করা হয়নি হাসপাতালের ভেতরে কিংবা বাহিরে।
যেসব লোকজন পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজে অংশ গ্রহণ করেছিলো তারা কোন অর্থ পেয়েছে কিনা জানতে চাইলে বলেন, আমরাতো এসব জানিনা। স্যার নির্দেশ দিয়েছেন তাই মাঠ পরিষ্কার করেছি। কিছু দিবে কিনা জানিনা।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ