1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় দুপুর ১:৪৯ আজ রবিবার, ২৬শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি




সাদুল্লাপুর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা রাখার দায়িত্ব কার?

  • সংবাদ সময় : বুধবার, ২৭ মার্চ, ২০১৯
  • ২৫৪ বার দেখা হয়েছে

তোফায়েল হোসেন জাকির, সাদুল্লাপুর প্রতিনিধি:
গাইবান্ধা জেলার একটি উপজেলা শহরের নাম সাদুল্লাপুর। ছোট্র এ শহরটি ইদানিং ময়লা-আবর্জনায় ভরপুর হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন স্থানে এখন আবর্জনার স্তুপ দৃশ্যমান রয়েছে। দেখার কেউ নেই, আছে সবার মোনগড়া বুলি। এসব আবর্জনা অপসারণের উদ্যোগ নেই কারই। যেন অভিভাবকহীন সাদুল্লাপুর।
বুধবার দুপুরে (২৭ মার্চ) সরেজমিনে দেখা গেছে, সাদুল্লাপুর শহরের প্রধান সড়ক ঘেষে দক্ষিণ পাশের এসডিএফ অফিসই সংলগ্ন ময়লা-আবর্জনার বিশালাকৃতির স্তুপ করে রাখা হয়েছে। এসব আবর্জনা গুলোর আশাপাশে সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও টি-স্টল এবং খাদ্য পণ্যের দোকান রয়েছে।
শুধু এসডিএফ অফিস সংলগ্নেই নয়, সাদুল্লাপুর বাজার, পুলিশ স্টেশন প্রাচীর পুর্ব ও হাইস্কুলের উত্তর পাশসহ শহেরর চারিদিকে ময়লা-আবর্জনায় ভরপুর হয়ে উঠছে। এরই পাশ দিয়ে বিভিন্ন এলাকার রোগি, ছাত্র/ছাত্রীসহ হাজার হাজার লোকজন চলাচলে করে থাকে। ফলে আবর্জনার দুর্গন্ধে নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে মানুষজন।

পথচারী শহিদুল ইসলাম ও আলী হাসান বলেন, এসডিএফ অফিস সংলগ্ন ও থানা প্রাচীর স্থানে জমে থাকা এসব ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে মানুষ। বিভিন্ন সময়ে এদিক দিয়ে চলতে গিয়ে শিক্ষার্থীসহ অনেকে নাক-মূখ চেপে যাতায়াত করছে।

স্থানীয় সুধীজনদের অভিযোগ করে বলেন, সরকারি ভাবে ডাসবিন স্থাপন না করায় শহরের ব্যবসায়ীরা ওইসব জায়গাগুলোতে আবর্জনা ফেলানোর কারণে পরিবেশ দুষণসহ পথচারীরা পড়ছেন ভোগান্তিতে। এসব ময়লা-আবর্জনা অপসারণে উপজেলা প্রশাসনের প্রতি দাবী জানান তারা।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) সংগঠনের শাখা প্রতিষ্ঠাতা তোফায়েল হোসেন বলেন, মেইন সড়কের পাশে আবর্জনার যে স্তুপটি রয়েছে, সেটির দুর্গন্ধ এড়াতে সাধারণ মানুষ এলোমেলো ভাবে চলাচল করে আসছে। এতে করে সড়ক দুর্ঘটনার আসঙ্কা করা হচ্ছে।

সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রহিমা খাতুন বলেন, সাদুল্লাপুর শহর পরিচ্ছন্নতা রক্ষায় বনিক সমিতির সভাপতি শফিউল ইসলাম স্বপনকে সদস্য সচিব করে একটি কমিটি গঠন করা হয়। শহরের আবর্জনা অপসারণের জন্য গাড়ীও কিনে দেয়া হয়েছে।

বনিক সমিতির সভাপতি শফিউল ইসলাম স্বপন বলেন, এসব ময়লা-আবর্জনা সরিয়ে ফেলতে অর্থের প্রয়োজন আছে। এসব অর্থ কে যোগান দেবে?
তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, শুধু আবর্জনার স্তুপেই সিমাবদ্ধ নয়, সাদুল্লাপুর শহেরর পানি নিঃস্কাশনের জন্য যেসব ড্রেন রয়েছে, সেগুলোতেও ময়লা জমে ভরে গেছে। এমনকি এই ড্রেনের সংযোগে সাদুল্লাপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ড্রেনের পানি সরবরাহ ব্যবস্থা ছিল। সম্প্রতি ময়লা দিয়ে ভর্তি ড্রেনের পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে মসজিদের উন্মক্ত ড্রেনের পানিতে মুসল্লিগণের পবিত্রতাও নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ