1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সকাল ৬:০১ আজ শনিবার, ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




সেইতো নথ খসালি

  • সংবাদ সময় : সোমবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৮
  • ১১২ বার দেখা হয়েছে

দেশে এখন অসংখ্য গণমাধ্যম। এসব গণমাধ্যমে অনেকের বাড়ির খবর থেকে শুরু করে হাঁড়ির খবরও উঠে আসছে।

রয়েছে টেলিভিশন, অনলাইন পত্রিকা, দৈনিক পত্রিকা, এফএম রেডিও কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। তথ্যপ্রবাহের অবাধ প্রবাহ বুঝি একেই বলে। আর এসবের বদৌলতে গোটা বিশ্ববাসী ইতোমধ্যে অবগত হয়েছেন যে, অবশেষে নির্বাচনে যাচ্ছে বিএনপি।

নিবন্ধিত দল হিসেবে বিএনপি নির্বাচনে আসবে, জয়-পরাজয় মেনে নেবে, এমনটাই স্বাভাবিক। কিন্তু এতোদিন উল্টো পথে হেঁটে দেশের জনগণের যে অশেষ ক্ষতি তারা করেছে, তার মূল্য চুকোবে কে!

সচেতন পাঠক নিশ্চয়ই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জঙ্গীমাতা খালেদা জিয়ার সেই ফোনালাপটি ভুলে যাননি। খালেদা জিয়া একজন বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর সাথে যে অসভ্য আচরণ করেছিলো তা দেখে সকলেরই চোখ কপালে উঠে গিয়েছিল। ভদ্র সমাজে বসবাস করে এ কোন আদিম রুচির পরিচয় দিলেন খালেদা জিয়া? সে প্রশ্ন বাংলাদেশের মানুষ খুঁজবে আরো অনেকদিন।

তবে সাধারণের বিস্ময়ের মাত্রা কমতে না কমতেই আরো বড় অসভ্যতার জন্ম দিলেন খালেদা। খালেদা পুত্রের মৃত্যুতে তাকে সান্তনা জানাতে ছুটে গিয়েছিলেন মানবতার নেত্রী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণ্ডমূর্খ খালেদা বা তার দলের নেতারা তার সাথে সৌজন্যতা প্রদর্শন করা তো দূরের কথা, তাকে দীর্ঘক্ষণ গেইটের বাহিরে দাঁড় করিয়ে রাখেন। অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নীরবে সেখান থেকে চলে আসেন।

খালেদার এ ঘৃণ্য আচরণে নিন্দার ঝড় ওঠে সর্বত্র। এমনকি কট্টর বিএনপি সমর্থকরাও এ প্রসঙ্গে আজও মাথা নিচু করেই রাখেন।

২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে দেশের জনগণের উপর বিএনপি জামায়াত জোটের আগুন সন্ত্রাস খালেদা- তারেকের কপালে এঁকে দেয় আরো একটি কলঙ্কের চিহ্ন। দেশব্যাপী পোড়া মানুষের আর্তনাদ ও তাদের স্বজনদের হাহাকারে চরম পাষাণ ব্যক্তির চোখেও ঝরেছে অশ্রু। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাসপাতালে গিয়ে কেঁদেছেন অঝোরে। গলেনি কেবল খুনী খালেদা-তারেকের মন।

নির্বাচন ঠেকাতে তারা অব্যাহত রাখে তাদের তান্ডবলীলা। তবু দেশের গণতন্ত্রপ্রিয় জনগণ ভোটপ্রয়োগ করে আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় আনে।

সফলতার সাথে পাঁচ বছর দেশ পরিচালনা করেছে আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা আজ তাঁরই কন্যার হাত ধরে উন্নতির চরম শিখরে।

নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারো সংগঠিত হয় দেশবিরোধী অপশক্তি। চালাতে থাকে একের পর এক অপকর্ম। জনমনে তৈরি হতে থাকে ভীতি।

এই অপশক্তির নির্বাচনে অংশ না নেয়ার হুমকি আবারো আগুনসন্ত্রাসের হুমকিতে পড়ে প্রিয় স্বদেশ। তবে শেষমেষ এই মহলটি বুঝতে পেরেছে, জনগণ ক্ষেপে গেলে এবার আর রক্ষা হবে না। তাই সুড়সুড় করে নির্বাচনী ট্রেনে উঠে পড়েছে তারা।

তাই দেশব্যাপী এখন একটাই কথা, ‘সেইতো নথ খসালি, তবে কেন লোক হাসালি’!




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ