1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় ভোর ৫:৪৩ আজ বৃহস্পতিবার, ৫ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য চিকিৎসা বিমা চালু করছে সরকার

  • সংবাদ সময় : সোমবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৮
  • ১৮২ বার দেখা হয়েছে

নিউজ ডেস্ক: উন্নত বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও সরকারি চাকরিজীবী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য চিকিৎসা বিমা চালু করতে যাচ্ছে সরকার। এর আওতায় কোনো সরকারি চাকরিজীবী কিংবা তার পরিবারের সদস্যরা অসুস্থ হলে তাদের পুরো চিকিৎসা ব্যয় বহন করা হবে। এজন্য বেতন থেকে বিমার প্রিমিয়াম হিসেবে সমান্য অর্থ কেটে নেওয়া হবে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে গত মঙ্গলবার আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে চিঠি পাঠানো হয়। সব কিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের মধ্যে এ-সংক্রান্ত পরিপত্র জারি হতে পারে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত জেলা প্রশাসক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারদের মুক্ত আলোচনায় সরকারি চাকরিজীবীদের চিকিৎসা বিমা চালুর প্রস্তাব দেওয়া হয়। পরে এটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্নিষ্টদের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

এরপর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে চিঠি পাঠায়। সংশ্নিষ্টরা বলছেন, এটি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য চিকিৎসা বিমা চালুর কাজ চলছে। এ-সংক্রান্ত ফাইল প্রস্তুত করে অনুমোদনের জন্য শিগগিরই অর্থমন্ত্রীকে দেওয়া হবে। তিনি অনুমোদন দিলে তা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। এরপর প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে তা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আকস্মিক দুরারোগ্যে আক্রান্ত হলে চিকিৎসা ব্যয় বহন করার মতো পৃথক কোনো হাসপাতাল নেই। ফলে বাধ্য হয়ে তাদের প্রাইভেট ক্লিনিক বা হাসপাতালে নিজ খরচে চিকিৎসা নিতে হয়। দুরারোগ্য রোগের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে পরিবারগুলো আর্থিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। সব গ্রেডের কর্মচারীর চিকিৎসার জন্য মাসিক দেড় হাজার টাকা খুবই অপ্রতুল। আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে তাদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা বিমার আওতায় আনা যেতে পারে। চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথাও উল্লেখ রয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান ও গবেষণা সেলের তথ্যানুযায়ী, দেশে সরকারি চাকরির প্রথম শ্রেণিতে কর্মরত রয়েছেন এক লাখ ৪৬ হাজার ৭৯১ জন, দ্বিতীয় শ্রেণিতে এক লাখ ১৭ হাজার ৭৬১ জন, তৃতীয় শ্রেণিতে আট লাখ ২৬ হাজার ৫১৭ জন এবং চতুর্থ শ্রেণিতে ২ লাখ ৫১ হাজার ৩৮৪ জন কর্মকর্তা। এতে সারাদেশে মোট সরকারি চাকরিজীবী রয়েছেন ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৪৫৩ জন। চিকিৎসা বীমা চালু হলে এদের প্রত্যেকের চিকিৎসা ব্যয় জোগান দেওয়া হবে সরকারের পক্ষ থেকে।

চিকিৎসা বিমার রূপরেখা সম্পর্কে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, এজন্য সবাইকে নির্ধারিত হারে প্রিমিয়াম দিতে হবে। এর সুবাদে যখন যার চিকিৎসার প্রয়োজন হবে, তখন তিনি প্রয়োজনীয় সব চিকিৎসা পাবেন। যার চিকিৎসার প্রয়োজন পড়বে না, তিনি ওই বিমার কোনো সুবিধা পাবেন না, কিন্তু প্রিমিয়াম ঠিকই দিতে হবে। এ প্রক্রিয়ায় একজনের টাকায় অন্যরাও চিকিৎসা পাবেন। বিশেষ করে নিম্নবিত্তদের চিকিৎসায় উচ্চবিত্তদের আর্থিক অংশগ্রহণমূলক সহায়তার বাধ্যবাধকতা থাকবে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ