1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় বিকাল ৪:০২ আজ শুক্রবার, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি




তারেকের নয়, সংসদ নির্বাচনে দলীয় নমিনেশন পাবে খালেদা জিয়ার তালিকা থেকে

  • সংবাদ সময় : মঙ্গলবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৮
  • ১১০ বার দেখা হয়েছে

 ডেস্ক  রিপোর্ট  : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা নিয়ে ধোঁয়াশা ছড়ালেও নির্বাচনে অংশ নিতে পুরো প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। তবে বিভিন্ন আসনে বিএনপির প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে তৈরি হয়েছে সঙ্কট। কেননা, নিজ নিজ আসন থেকে প্রার্থী হতে দীর্ঘদিন থেকেই তারেক রহমানের কাছে নানা উপঢৌকন পাঠিয়েছেন নেতারা। ফলে তারা নিজেদের প্রার্থীতা বিষয়ে নিশ্চিন্ত হলেও জানা গেছে কঠিন সত্য। সংসদ নির্বাচনে বিএনপির নমিনেশন প্রাপ্ত ব্যক্তিবর্গের তালিকা অনেকে আগেই হয়ে গেছে। সর্বশেষ লন্ডন সফরের পূর্বে বেগম খালেদা জিয়ার তালিকাই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। উক্ত বিষয়গুলোর সত্যতা ধানমণ্ডি থানা বিএনপির সভাপতি শেখ রবিউল আলম রবি নিশ্চিত করেছেন।

বিএনপির নীতিনির্ধারক পর্যায়ের বেগম জিয়াপন্থী একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নমিনেশন নিয়ে যে গোলক ধাঁধাঁ তৈরি হয়েছে, তা বহুআগেই নির্ধারিত হয়ে আছে। বেগম খালেদা জিয়া চিকিৎসাজনিত কারণে সর্বশেষ লন্ডন গমনের পূর্বে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য যাদের তালিকা তৈরি করেছিলেন, সেটাই চূড়ান্ত হবে। তবে তারেক রহমানের কথার গুরুত্ব রয়েছে। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়ার চেয়ে বেশি নয়, তাই তারেক রহমানের কথায় কোন নমিনেশন দেয়া হবে না।

এদিকে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নমিনেশন পাওয়া নিয়ে তারেক রহমানের কাছে নিশ্চয়তা চাইতে বিভিন্ন সময় অর্থ দিয়েছে অনেকেই। তাদের সেই অর্থ আপাতদৃষ্টিতে জলে ফেলেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। এমন প্রেক্ষাপটে হতাশায় পড়েছেন টাকা দিয়ে নমিনেশন পেতে ইচ্ছুক ওইসব নেতারা। যদিও তারেক রহমান নিজের অপারগতা ঢাকতে আশ্বাস দিয়েই চলেছেন।

এ প্রসঙ্গে হাজারীবাগ থানা বিএনপির সভাপতি মজিবুর রহমান মজু বলেন, তারেক রহমানপন্থী নেতারা বর্তমানে হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে শেষ দৌড়ঝাঁপ হিসেবে ঢাকায় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও প্রভাবশালী নেতাদের বাসা বা অফিসে যাচ্ছেন। কেউ কেউ আশ্বাস দিচ্ছেন, আবার কেউ কেউ বলছেন, বিষয়টিতে তাদের হাত নেই। তারপরও নাছোড়বান্দা বিএনপির তৃণমূল নেতারা। টাকার অফারও দেওয়া হচ্ছে প্রভাবশালী নেতাদের। কেউ কেউ লুফেও নিচ্ছেন। দুঃখজনক হলেও সত্যি এ নিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মুখরোচক আলোচনাও চলছে নিয়মিত।

দলের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বিগত আন্দোলনে কার কী ভূমিকা, কার কত মামলা, ত্যাগ, দলের প্রতি আনুগত্য, সাধারণ মানুষের মধ্যে জনপ্রিয়তা, ব্যক্তিগত ইমেজ সব বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বিএনপির নীতিনির্ধারক পর্যায়ের একাধিক নেতা জানান, বিষয়টি হতাশাজনক। জনবিচ্ছিন্ন নেতাদের প্রার্থী না করার দিকনির্দেশনা রয়েছে হাইকমান্ডের। প্রার্থী নির্বাচনে বিগত আন্দোলনসহ সাধারণ মানুষের কাছে কার কতটুকু জনপ্রিয়তা— সে বিষয়টিও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। দলের অভ্যন্তরে এসব আলোচনা থাকলেও যারা এরইমধ্যে মনোনয়ন দৌড়ঝাঁপে অর্থ খুইয়েছেন তারা আছেন মহাবিপদে।

নমিনেশন প্রত্যাশী সিলেট মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের সাঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনি প্রায় দুই বছর আগে নমিনেশন সংক্রান্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে প্রায় ২০ কোটি টাকা জমা দেন তারেক রহমানের কাছে। কিন্তু খালেদা জিয়ার মতামতে তৈরি সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নমিনেশন প্রাপ্তদের তালিকায় তার নাম নেই। সংসদ নির্বাচনে নমিনেশন তারেকের সিদ্ধান্তে কার্যকর হবে না- এমন খবরেও হতাশ হয়ে পড়েছেন বদরুজ্জামান সেলিম।

তিনি আরো বলেন, তারেক রহমানের আশ্বাসে আমি ২০ কোটি টাকা দিয়েছিলাম। এমপি নমিনেশনের জন্য তিনি আমাকে নিশ্চয়তাও দিয়েছিলেন। নমিনেশন পেলে বাকি টাকা পরিশোধ করার কথা ছিলো। এখন শুনছি নমিনেশন তারেক রহমান নয়, ম্যাডামের সিদ্ধান্তে হবে। আমি কী করবো তা ভাবতে পারছি না।

সিলেটের এই নেতার মতো অনেকেই একই সংকটে পড়ে আছেন। এমন পরিস্থিতিতে তারা সরাসরি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে সমাধান চাইবেন বলে জানা গেছে। তারা চায়- হয় তাদের টাকা ফেরত দেয়া হোক, নইলে নমিনেশন। নতুবা প্রার্থীতা নিয়ে মাঠপর্যায়ের কোন্দলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বিএনপি।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ