1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সকাল ৭:৩৯ আজ বৃহস্পতিবার, ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




সরকার ৫০টি ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীকে স্বীকৃতি প্রদান করছেন

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১১ আগস্ট, ২০১৮
  • ৭১২ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট: এ বছর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের দিন ‘আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস’ এর মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে— ‘ইনডিজেনাস পিপলস, মাইগ্রেসন এন্ড মুভমেন্ট’। এই মূল সুরের সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশ ‘আদিবাসী ফোরাম’ দিবসের প্রতিপাদ্য করেছে— ‘আদিবাসী জাতিসমূহের দেশান্তর প্রতিরোধের সংগ্রাম’।

সরকার দেশের ৫০টি ক্ষুদ্রজাতিগোষ্ঠীকে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছে। স্বাধীনতার পর এই প্রথম এত জাতিগোষ্ঠীর স্বীকৃতি দেওয়া হচ্ছে। বেশ কয়েক বছর ধরে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় গবেষণা ও বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে আলোচনার পর ৫০টি জাতিগোষ্ঠীর তালিকা তৈরি করেছে। একটি আইন করে এসব জাতিগোষ্ঠীকে স্বীকৃতি দেওয়া হবে। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এমনটাই জানানো হয়েছে।

সরকার ক্ষুদ্রজাতিগোষ্ঠীদের জন্য বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে। সর্বশেষ বাজেটেও ক্ষুদ্রজাতিগোষ্ঠী জন্য বিশেষ বরাদ্ধ রাখা হয়েছে। শেখ হাসিনার উদ্যোগে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর স্বাক্ষরিত শান্তি চুক্তি ক্ষুদ্রজাতিগোষ্ঠীর- উন্নয়নের মাইলফলক। এ চুক্তির ফলে ক্ষুদ্রজাতিগোষ্ঠীদের শান্তি, সৌহার্দ ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা তথা শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, কৃষি ও আর্থ-সামাজিক খাতে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে।

সরকারি চাকরিতে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য ৫ শতাংশ কোটা বরাদ্দ থাকে। বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও তাদের কোটা রয়েছে। এই স্বীকৃতির ফলে নিশ্চিত ভাবেই চাকরি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তিসহ বিভিন্ন সরকারি সহায়তা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে তাঁদের ভোগান্তি কমবে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ