1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় দুপুর ১২:০৬ আজ সোমবার, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




মাদকাসক্তরা পাবে না সরকারি চাকরি

  • সংবাদ সময় : রবিবার, ২২ জুলাই, ২০১৮
  • ৩৮৫ বার দেখা হয়েছে

নিউজ ডেস্ক: মাদক বিরোধী অভিযানে ব্যাপক সাফল্য ও গ্রহণযোগ্যতা পাওয়ার পর এবার সরকারি চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম নিয়ে আসছে সরকার। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাদকমুক্ত রেখে সুন্দর একটি সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনে সরকার বিশেষ একটি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে যাচ্ছে। মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে এবার সরকারি চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট দিতে হবে প্রার্থীদের। ডোপ টেস্টের রিপোর্ট ইতিবাচক হলেই পাওয়া যাবে সরকারি চাকরি। ডোপ টেস্টে ব্যর্থ হলে সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে অযোগ্য বিবেচিত হবেন প্রার্থী।

খুব শিগগিরই এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। তার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণাও দেয়া হবে।

এই বিষয়ে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. জামাল উদ্দিন বলেন, সরকারি চাকরিতে যোগ দেয়ার আগে সব প্রার্থীরই স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় ডোপ টেস্ট করা হবে। জীবনে কেউ যদি ইয়াবা, গাঁজা ও হেরোইনের মতো মাদক সেবন করে থাকে-সে চাকরি পাবে না। কারণ ডোপ টেস্টে সেটা ধরা পড়বে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ সংক্রান্ত একটি সার-সংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হয়। গত সপ্তাহে ওই সার-সংক্ষেপ অনুমোদন করেন প্রধানমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর এখন এটি বাস্তবায়নের পর্যায়ে রয়েছে। এটি বাস্তবায়নের জন্য স্বাস্থ্য ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, দেশের প্রতিটি সিভিল সার্জনের অফিসেই সরকারি চাকরির মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণের পর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে হয়। এখন তার সঙ্গে যোগ হবে ডোপ টেস্ট। আপাতত প্রতিটি জেলা পর্যায়ে রক্ত ও প্রস্রাব পরীক্ষার মাধ্যমেই মাদকাসক্ত শনাক্ত করা হবে। ধাপে ধাপে বিশেষ ইকুইপমেন্ট ও কেমিক্যাল যোগ করা হবে।

মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের একাধিক কর্মকর্তা জানান, এই নিয়ম বাস্তবায়ন হলে উচ্চশিক্ষিত তরুণ সমাজই নয়, অর্ধশিক্ষিত বেকারও আগে থেকেই সতর্ক হয়ে যাবে। কারণ সরকারি চাকরি পেতে হলে মাদক ছাড়তে হবে, নইলে বেকার থাকতে হবে। পিয়ন থেকে বিসিএস ক্যাডার-কেউ রেহাই পাবে না।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ