1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় সকাল ৭:৫৮ আজ সোমবার, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে অগ্রগতি

  • সংবাদ সময় : শনিবার, ৭ জুলাই, ২০১৮
  • ৩১১১ বার দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট: রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে অগ্রগতি হচ্ছে। রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে আন্তর্জাতিক সংগঠন থেকে শুরু করে সর্বত্র সংকট নিরসনের জন্য কাজ করেছে সবাই। এদের মধ্যে বাংলাদেশ সরকারেরও যথেষ্ট সদিচ্ছা রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের সদিচ্ছার কারণে সম্প্রতি এই সমস্যা সমাধানের জন্য রেড ক্রসের প্রেসিডেন্ট পিটার মাউরি মিয়ানমার সফর করেছেন। তিনি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ করছেন।

প্রসঙ্গত মিয়ানমারের সেনাবাহিনী মিয়ানমারের রাখাইনে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের উপর অকথ্য নির্যাতন চালিয়ে দেশ ত্যাগে বাধ্য করেছিলো। দীর্ঘদিন থেকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মহলে চেষ্টা চলছে।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য শনিবার বাংলাদেশ সফরে এসেছিলেন বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম। তিনি দুই দিনের সফর শেষে বলেন, “আন্তর্জাতিক মহল থেকে বাংলাদেশকে সমর্থন ও সহযোগিতা দরকার। আন্তর্জাতিক মহল থেকে সহযোগিতা পেলে বাংলাদেশ সরকার দ্রুত সমস্যা সমাধানে সচেষ্ঠ হবে। রোহিঙ্গা সমস্যা সমধানে বাংলাদেশ সরকারের পদক্ষেপের কোন কমতি নেই।”

রবিবার বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট কিম, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় তারা রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গ এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির নানা প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা করেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে মিয়ানমারের উপর চাপ অব্যাহত রাখায় তাদের সংকল্পের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।

এছাড়াও সম্প্রতি মিয়ানমার সফরে গিয়েছিলেন রেড ক্রসের প্রেসিডেন্ট পিটার মাউরি। সফরের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে রেড ক্রসের প্রেসিডেন্ট বলেন, রাখাইনে আমি এক গ্রাম দেখে এসেছি, যেখানে তিন- চতুর্থাংশ মানুষ পালিয়ে বাংলাদেশে চলে এসেছে। রেড ক্রসের প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, “আমি কারো দোষ খুঁজতে বা বলতে আসিনি। রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের উদ্যোগে কোনো কমতি নেই। দুই দেশের সরকারই তাদের তরফ থেকে সংকট সমাধানের যথেষ্ট চেষ্টা চলছে এবং তাদের সদিচ্ছা নিয়ে আমি নিশ্চিত।”

বাংলাদেশে বিপুল সংখ্যক শরনার্থী প্রবেশে সৃষ্ট ভয়াবহতা সামাল দিতে সহযোগিতা করবে বিশ্ব ব্যাংক। বাংলাদেশের ধারাবাহিক উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে ৪৮ কোটি ডলার অনুদান দিবে বিশ্ব ব্যাংক।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ