1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ৮:৪৪ আজ মঙ্গলবার, ৩রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি




হেল্প লাইনে সেবাপ্রাপ্তির সুফল জানেনা বেশিরভাগ মানুষ

  • সংবাদ সময় : বুধবার, ৩০ মে, ২০১৮
  • ১১৭২ বার দেখা হয়েছে

আফতাব হোসেন:
দেশে সরকারি একাধিক হেল্প লাইন চালু থাকলেও এবিষয়ে জানেন না তৃণমূলের গ্রাহক। এমনকি সাধারণ মানুষ জানেন না কোন হেল্প লাইন কোন প্রয়োজনে ব্যবহৃত হচ্ছে। আবার কিছু সংখ্যক  সুবিধাভোগী দু’একটি নম্বরগুলো জানলেও মনে রাখতে পারেন না।
সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের শিশু সুরক্ষায় হেল্প লাইন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের, মহিলা অধিদপ্তরের হেল্প লাইন এবং সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধে হেল্প লাইন-এ ধরনের ভিন্ন ভিন্ন হেল্প লাইন থাকায় তৃণমূলের গ্রাহকরা বিভ্রান্তিতে পড়ছেন বলে অভিযোগ করেন সেবা গ্রহীতারা।
শিশুর আইনগত সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার শিশু সুরক্ষা বিষয়ক হেলপ লাইন-১০৯৮ চালু করে । এদিকে ‘১৬২৬৩’-হেল্প লাইন নম্বরটি চালু করে স্বা¯’্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে চালু হয়েছে-১০৯২১ এবং সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধে চালু আছে হেল্প লাইন-০১৭৬৬৬৭৮৮৮৮, জুরুরী সেবা অর্থাৎ ফায়ার সার্ভিস, এ্যাম্বুলেন্স এসবের জন্য চালু রয়েছে ৯৯৯, দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক হেল্প লাইন ১০৬, কৃষি কল সেন্টার ১৬১২৩, দুর্যোগ বার্তার জন্য ১০৯৪১। এছাড়া আরো কয়েকটি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের হেল্প নম্বর রয়েছে।
তবে ধীরে হলেও মহিলা অধিদপ্তরের ‘১০৯২১’ হেল্প লাইনের সুফল পেতে শুরু করেছে নির্যাতিত নারী ও শিশুরা। নির্যাতিত নারী ও শিশুদের সেবা দিতে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মহিলা অধিদপ্তর জাতীয় কল সেন্টার বা হেল্প লাইন চালু করে ২০১২ সালের ১৯ জুন। বর্তমানে এই হেল্প লাইনটিতে ২৪ ঘন্টায় ৪০০ থেকে ৫০০ কল রিসিভ করতে হ”েছ।
গ্রাহকদের কল নিয়ে যাতে  বিভ্রান্তিতে যাতে না হয় এজন্য  শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত নেয়  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্যে যে বই দেওয়া হয় এর পেছনে হেল্প লাইন নম্বর খেলার। সরকারের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, এখন যেখানে একসঙ্গে ১০টি লাইনে একসঙ্গে কথা বলা যায়, সেটার সক্ষমতা বাড়িয়ে একসঙ্গে ৩০টি লাইন একসঙ্গে রিসিভ করার ব্যব¯’া নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এবিষয়ে ফুলছড়ি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, চলতি মাসে জানলাম  হেল্প লাইন বিষয়ে। তাও আবার নিজের সন্তানের কাছ থেকে। জিইউকে ও ইউনিসেফ এর মাধ্যমে শিশু সুরক্ষা প্রকল্পের মাধ্যমে শিশুদের এসব বিষয়ে ধারণা দেওয়া হয় আর শিশুরা এসে অভিভাবকদের সাথে আলোচনা করে।
এরেন্ডাবাড়ি চরের শিশু মনোয়ারা বেগম জানান, শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটলে কোথায় ফ্রি কল দেওয়া যায় সেটি সে জেনেছেন একটি শিশু সুরক্ষা সেন্টার থেকে।
বেসরকারি উন্নয়ন সং¯’া গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান জানান, সরকার চমৎকার কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কিš‘ সাধারন জনগণ এর সুফল সেভাবে পা”েছন না। ফ্রি এবং টোলযুক্ত যেসব নম্বর রয়েছে বিষয়ে তৃণমূল জনগণকে জানাতে হবে। হেল্প নম্বরগুলো যদি লিফলেট, ষ্টিকার বা অন্যকোন ভাবে প্রতিটি পাড়া-গ্রামে পৌঁছানো হয় তাহলে জনগণ আরো বেশি সুবিধা পাবে।




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ