1. aftabguk@gmail.com : aftab :
  2. ashik@ajkerjanagan.net : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  3. chairman@rbsoftbd.com : belal :
  4. ceo@solarzonebd.com : Belal Hossain : Belal Hossain
×
     

এখন সময় রাত ১০:১৮ আজ সোমবার, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




কৃমি থেকে শিশুকে কীভাবে সুরক্ষিত রাখবেন?

  • সংবাদ সময় : বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭
  • ২৪৯০ বার দেখা হয়েছে

ভ্রান্তি এক: ‘শিশু ঘুমের মধ্যে দাঁত কিড়মিড় করে। তার মানে ওর পেটে কৃমি হয়েছে।’
ভ্রান্তি দুই: ‘শিশুটি খুব মিষ্টি খেতে পছন্দ করে। এ কারণেই তার পেটে কৃমি হয়েছে। কেননা চিনি খেলে পেটে কৃমি হয়।’
এ রকম আরও কত যে ভুল ধারণা আছে! আসলে কৃমি এসব কিছু থেকেই হয় না। কৃমি এক ধরনের পরজীবী, যা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও খাদ্যাভ্যাসের কারণে শিশুদের আক্রমণ করে।
আসুন জেনে নিই কৃমি হওয়ার কারণে শিশুরা কীভাবে ভোগে:
* পেটে কৃমি হলে শিশুর খাবারের প্রতি রুচি কমে যায়
* স্বাস্থ্য খারাপ হয়, ওজন বাড়ে না। কেননা সে যা খায়, তার এক-তৃতীয়াংশই কৃমি খেয়ে ফেলে।
* শিশু রক্তশূন্যতায় আক্রান্ত হয়। একটা কৃমি প্রতিদিন শরীর থেকে শূন্য দশমিক ১ মিলিলিটার রক্ত শোষণ করে থাকে। কৃমির কারণে আমাদের দেশের প্রায় ৬০ শতাংশ শিশু রক্তস্বল্পতায় ভুগছে।
তাহলে এই কৃমির সংক্রমণ থেকে শিশুকে বাঁচাতে কী করবেন?
* যেকোনো কিছু খাওয়ার আগে শিশুকে ভালো করে হাত ধুয়ে নিতে হবে। এই অভ্যাস শিশুর মধ্যে তৈরি করুন।
* টয়লেট ব্যবহারের পর অবশ্যই সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস করুন।
* পানি ভালো করে ফুটিয়ে পান করাবেন। সম্ভব হলে শিশুর তৈজসপত্র ফুটানো পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন।
* বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার শিশুকে খাওয়াবেন না।
* স্বাস্থ্যকর উপায়ে পরিষ্কার হাতে শিশুর খাবার তৈরি ও পরিবেশন করবেন এবং খাবার ঢেকে রাখবেন।
* নোংরা জায়গায় শিশু খালি পায়ে হাঁটবে না।
* দুই বছর বয়স থেকে প্রতি ছয় মাস পর পর শিশুকে কৃমির ওষুধ খাওয়ান। বাড়ির গৃহকর্মীসহ পরিবারের সবাই এই ওষুধ খাবেন।

অধ্যাপক তাহমীনা আক্তার
শিশু বিশেষজ্ঞ




সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ধরনের আরো সংবাদ