এখন সময় রাত ৩:১৭ আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০১৯ ইং, ১৫ই শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী


Home / জাতীয় / সাঘাটা বাজারের পল্টন মোড়ে হাটু পানি!

সাঘাটা বাজারের পল্টন মোড়ে হাটু পানি!

সাঘাটা প্রতিনিধি:
সামান্য বৃষ্টির ফলেই ডুবে গেছে সাঘাটা বাজারের পল্টন মোড়সহ  বেশিরভাগ রাস্তা। পানি নিষ্কাশনে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সাঘাটা  বাজারের সবকয়টি প্রবেশপথে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতার। বিশেষ করে  চার মাথা (পল্টন মোড়) এলাকার অবস্থা সব চেয়ে করুণ। এ চার মাথা হতে হাসপাতাল, থানা, বালিকা স্কুল এন্ড কলেজ, হাইস্কুল, চিনিরপটল ও ডাকবাংলা গামী রাস্তার প্রায় অংশই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ার চরম জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ  এই বাজারটিতে মানুষের দুর্ভোগ যেন দেখার কেউ নেই। লোকজন অসহায়ত্বের মতো চলাচল করছে। এই অবস্থা চলতে থাকলে আগামী বর্ষার শুরুতেই বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে সাঘাটা বাজার অচল হয়ে পড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সাঘাটা বাজার হতে সরকার প্রতিবছর লাখ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় করলেও এ বাজারে নেই পানি নিস্কাশনের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা। চলতি বছর বাজারের চারপাশের ছোট ছোট খাল, পুকুর, ডোবা ও গর্ত ভরাট করে বসত বাড়ীসহ নানা ধরণের স্থাপনা গড়ে ওঠার কারণে এই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া বাজার এলাকার পানি নিষ্কাশন পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সামন্য বৃষ্টিতে ডুবে গেছে রাস্তা-ঘাট। এতে করে শনিবার সকাল ১১ টা পর্যন্ত বাজারের কেউ দোকানপাঠ খুলতে পারেনি পানির কারনে।  এছাড়াও বিদ্যালয়গামী শিশুসহ বাজারের ক্রেতা বিক্রেতাদের যাতায়াতে মারাত্মক প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে।
এ বিষয়ে  সাঘাটা বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সেলিম আহম্মেদ তুলিপ জানান, গত বছর এবাজার ১২ লক্ষাধিক টাকা ইজারা হয়েছে।  তবে, ড্রেন করার পরিকল্পনা আছে বলে তিনি জানান।
প্রতি বছর লাখ লাখ টাকা সরকার পেয়ে থাকলেও ড্রেনেজ ব্যবস্থা নিয়ে কোন কাজ করা হচ্ছে না।  বর্ষার মৌসুমের আগে পানি নিষ্কাশনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা না হলে বৃষ্টির পানি জমে সাঘাটা বাজারসহ বাজারের আশে পাশে এলাকায় দীর্ঘস্থায়ী জলাবদ্ধতা দেখা দিবে। বন্ধ হয়ে যাবে লোকজনের স্বাভাবিক চলাফেরা ও বাজারে ব্যবসা-বাণিজ্য। এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান, স্থানীয় ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট জানালেও সমাধানে কোন আশ্বাস পাওয়া যায়নি।  এ বিষয়ে সাঘাটা বাজারের নুরুন্নবী  জানান, বাজারের আশপাশের পুকুরগুলো মাটি দিয়ে ভর্তি করায় এই অবস্থা হয়েছে, এছাড়াও বাজারে পানি নিষ্কাষনের জন্য কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় এই জনদুর্ভোগ। তিনি অতিবিলম্বে বাজারে ড্রেন করার জন্য স্ংশিষ্ট কর্তপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।  এই দুর্ভোগ লাঘবে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

Check Also

রংপুর তাজহাট মেট্রোপলিটন থানা পুলিশের ঈদ উৎসব

এম.এ জলিল-রংপুর প্রতিনিধি ॥ ঈদ মানে খুুশি, ঈদ মানেই অনাবিল আনন্দর হাতছানি, পরিবার ও প্রিয়জনের …